No icon

‘ভারতের চরমপন্থী চেহারা আরেকবার উন্মোচিত হলো’

ভারতের অযোধ্যার বাবরি মসজিদের জায়গা নিয়ে দেশটির শীর্ষ আদালত যে রায় দিয়েছে তা প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের (আইএসপিআর) মুখপাত্র জেনারেল আসিফ গফুর এই প্রতিক্রিয়া জানান।

general asif gafoor

শনিবার ভারতের সুপ্রিম কোর্ট ঘোষিত রায়ে বলা হয়, বিতর্কিত ওই জমিতে রামমন্দির নির্মাণ করতে পারবে হিন্দুরা। তবে মসজিদ নির্মাণের জন্য মুসলিমদের পাঁচ একর জমি দিতে চেয়েছেন আদালত। যেখানে মুসলমানরা মসজিদ নির্মাণ করতে পারবেন।

রায় ঘোষণার পর টুইট করে জেনারেল আসিফ গফুর বলেন, ‘বাবরি মসজিদের রায়ে চরমপন্থী ভারতের কুৎসিত চেহারা আরও একবার বিশ্বের সামনে উন্মোচিত হলো।’

শনিবারই কার্তারপুর করিডরের উদ্বোধন করা হয়েছে। ভারতীয় শিখ পুণ্যার্থীদের জন্য তা খুলে দিয়েছে ইসলামাবাদ। সেই উদাহরণ টেনে আসিফ গফুর বলেন, ‘পাকিস্তান অন্য ধর্মকে সম্মান জানাতে কার্তারপুর করিডর খুলে দিচ্ছে।’

উল্লেখ্য, কট্টর হিন্দুদের বিশ্বাস, উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় ভগবান রামচন্দ্র জন্মেছিলেন। তার জন্মস্থান বলে চিহ্নিত জায়গায় ষোড়শ শতকে মোগল সম্রাট বাবরের আমলে একটি মসজিদ তৈরি হয়। যার নাম দেওয়া হয় বাবরি মসজিদ। মন্দির ভেঙে মসজিদ তৈরি নিয়ে সেই থেকে হিন্দু-মুসলমানের যে বিবাদ চলছিল, ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর তা অন্যদিকে বাঁক নেয়।

কারণ ওই দিন কট্টর হিন্দুত্ববাদীরা বাবরি মসজিদ ধ্বংস করে। এ নিয়ে সৃষ্ট সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় অন্তত দুই হাজার লোক নিহত হন। সেই থেকে বাবরি মসজিদের ২ দশমিক ৭৭ একর জমির মালিকানা নিয়ে আইন লড়াই আরো জোরদার হয়। অবশেষে শনিবার ভারতের আদালত উগ্রবাদী হিন্দুদের পক্ষেই রায় দেয়।

Comment As:

Comment (0)