No icon

পুরস্কৃত হলেন বিনপি চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মামলায় রায় প্রদানকারী বিচারক ড, আখতারুজ্জামান।

পুরস্কৃত হলেন বিনপি চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মামলায় রায় প্রদানকারী বিচারক ড, আখতারুজ্জামান। একই সাথে পুরস্কৃত হলেন ২১ আগষ্ট মামলায় রায় প্রদানকারী বিচারক শাহেদ নূর উদ্দিন। এ দুই বিচারককে জেলাজজ আদালত থেকে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি হিসাবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। সাংবিধানিক নিয়ম অনুযায়ী তারা ২ বছর অস্থায়ী বিচারপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন। ২ বছর পর স্থায়ী নিয়োগ দেয়া হয়।

আজ ৭জন নতুন অস্থায়ী বিচারপতি নিয়োগ দেয়া হয়েছে হাইকোর্ট বিভাগে। এর মধ্যে বেগম খালেদা জিয়াকে কারাদন্ড দিয়ে রায় প্রদানকারী বিচারক এবং ২১ আগষ্ট মামলার রায় প্রদানকারী বিচারকদ্বয় রয়েছেন।

উল্লেখ্য বেগম খালেদা জিয়ার মামলার শুরুতে বিচারক আবু আহমদ জমাদারের প্রতি অনাস্থা দেয়া হয়। এই অনাস্থা শেষ পর্যন্ত হাইকোর্ট বিভাগ হয়ে আপিল বিভাগ পর্যন্ত গড়িয়েছিল। অনাস্থার আবেদন উচ্চ আদালত কবুল করে নেয়। উচ্চ আদালতের নির্দেশনায় আবু আহমদ জমাদারকে সরিয়ে দেয় সরকার। তাঁর স্থলে বেগম খালেদা জিয়ার মামলা শুনানী গ্রহন এবং রায় প্রদানের জন্য নিয়োগ দেয়া হয় আখতারুজ্জামানকে। বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা তাঁর উপর আস্থা স্থাপন করে আইনি লড়াইয়ে অবতীর্ণ হন!

কিন্তু রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রনোদিত মামলায় আইনি লড়াই বলতে কিছু নেই। রাজনৈতিক লড়াই দিয়ে মোকাবেলা করতে হয়। বেগম খালেদা জিয়ার দীর্ঘ কারাবাসে এমন উপলব্ধির কথা আইনজীবীদের মুখে শোনা যায় এখন।

Comment As:

Comment (0)