No icon

ড. ইমতিয়াজ: প্রতিবাদ নেই বলেই সীমান্ত হত্যা বাড়ছে

ভারতের সঙ্গে পাকিস্তান কিংবা চীনের যে সম্পর্ক, বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কটা মোটেও তেমন নয়। আমরা পরস্পর বন্ধুপ্রতিম দেশ। কিন্তু সীমান্ত হত্যার লাগাতর ঘটনা দেখলে মনে হয় ভারত আমাদের কোনো বৈরী রাষ্ট্র। এমনকি চরম শত্রু দেশ পাকিস্তানের সীমান্তেও এত হত্যাকাণ্ড ঘটতে দেখা যায় না- কথাগুলো বলেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ও স্বনামধন্য আন্তর্জাতিক বিশ্লেষক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ।

একটি অনলাইন গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে ড. ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, আমাদের দিক থেকে আমরা যথাযথ চাপ প্রয়োগ করতে পারিনি, প্রতিবাদ করতে পারিনি। তাই হত্যাকাণ্ড বন্ধ হচ্ছে না। আবার এসব হত্যাকাণ্ড নিয়ে ভারতীয়দের মধ্যেও কোনো বিকার নেই, তাদের সুশীল সমাজ এ নিয়ে কখনোই কিছু বলেনি। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক।

তিনি আরো বলেন, এসব হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বিএসএফ থেকে মাঝে মাঝে যেসব অভিযোগ করা হয়, তা আরো বেশি দুঃখজনক। কেউ চুরি করে সীমান্ত পাড়ি দিলে তাকে গুলি করে মেরে ফেলতে হবে, এই মানসিকতা ভয়ংকর। তাছাড়া অভিযোগগুলো অত্যন্ত ঠুনকো, সাধারণ আলোচনার ভেতর দিয়েই এসব সমস্যা সমাধান করা সম্ভব। বারবার বন্ধু রাষ্ট্র বলে এমন আচরণ করা খুবই অন্যায়।

ভারত সরকার নিশ্চয়ই জানে, এমন হত্যাকাণ্ড কিংবা বিশেষ ধরণের চাপে রেখে সম্পর্ক উন্নয়ন হয় না। এতে করে উল্টো সাধারণ মানুষের মধ্যে ভারতবিরোধী মনোভাব বৃদ্ধি পাবে। আখেরে যা ভারতের জন্যই ভালো হবে না। এমন চাপ প্রয়োগ যে বুমেরাং হতে পারে, তার বড় প্রমাণ বর্তমান নেপাল।

Comment As:

Comment (0)