No icon

ভিপি নুর গ্রেফতার

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুরকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় হয়রানিমূলক মামলার প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয় তাকে। এ সময় আরও ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর তাদের ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মিশু বিশ্বাস সংবাদ মাধ্যমকে নুরের গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

এর আগে নুরুল হক নুরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রী। তবে এই অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের আটক করা হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় হয়রানিমূলক মামলার প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয় তাকে। এ সময় আরও ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর তাদের ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মিশু বিশ্বাস ব্রেকিংনিউজকে নুরের গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের ইংরেজি বিভাগের ছাত্র নুর আলোচনায় আসেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের মাধ্যমে। এই আন্দোলন তাকে দেশব্যাপী ব্যাপক পরিচিতি এনে দেয়। এরপর তিনি বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ নামে একটি সংগঠনের ব্যানারে ডাকসু নির্বাচন করে ভিপি নির্বাচিত হন। সম্প্রতি তিনি একটি নতুন রাজনৈতিক দলও গঠন করেছেন।

এরআগে, ভিপি নুরুল হক নুরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন ঢাবির এক শিক্ষার্থী। গতকাল রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে ওই ছাত্রী রাজধানীর লালবাগ থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা জানিয়েছেন, নুরের সঙ্গে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আরও কয়েকজন নেতাকে আটক করা হয়েছে।

এদিকে এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ৭ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন আদালত। সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম বেগম ইয়াসমিন আরা মামলার এজাহার গ্রহণ করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য এ দিন ধার্য করেন।

মামলার প্রধান আসামি করা হয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে। ধর্ষণের স্থান হিসেবে লালবাগ থানার নবাবগঞ্জ বড় মসজিদ রোডে হাসান আল মামুনের বাসার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

বাদী শিক্ষার্থী ঢাবির বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলে থাকেন।

নুর ও মামুন ছাড়া মামলার অন্য আসামিরা হলেন- বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগ, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক (২) মো. সাইফুল ইসলাম, ছাত্র অধিকার পরিষদের সহ-সভাপতি মো. নাজমুল হুদা এবং ঢাবি শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ হিল বাকি।

Comment As:

Comment (0)