No icon

বিএনপি’র অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত, পুলিশ বিএনপি পাল্টাপাল্টি দোষারোপ

ঢাকা মহানগর বিএনপির নবগঠিত দুই কমিটির নেতাদের সঙ্গে কয়েক হাজার কর্মী আজ মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে চন্দ্রিমা উদ্যানে দলের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য জড়ো হলে সেখানে আগে থেকে মোতায়েন পুলিশ বাধা দেয়।

এ সময়  পুর্বনির্ধারিত কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া বিএনপি নেতা কর্মীদের সাথে  পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।  পুলিশের লাঠিপেটা, কাঁদানে গ্যাস ও রাবার বুলেটে বিএনপির অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হন। আহতদের মধ্যে ঢাকা মহানগর বিএনপির উত্তরের আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান ও সদস্য সচিব আমিনুল হকও রয়েছেন। এরপর ১১টার দিকে উত্তরের নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ মিছিল নিয়ে মাজারের দিকে  যেতে থাকলে পুলিশ আর এক দফা  কাঁদনে গ্যাস ও রাবার বুলেট ছোড়ে।

এসময় নেতা কর্মীরা এদিক-ওদিকে ছুটতে থাকেন। পুলিশ ধাওয়া করে তাদের চন্দ্রিমা উদ্যানের সীমানার বাইরে বের করে দেয়। এ সময় শেরেবাংলা নগর, ফার্মগেইট এলাকার আশপাশের রাস্তায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। বিক্ষুব্ধ কর্মীরা রাস্তায় নেমে বেশকিছু যানবাহন ভাঙচুরও করেন।

এসময় মহানগর বিএনপির উত্তরের আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান গনমধ্যমকে বলেন পুলিশ সম্পুর্ন বিংশ আউস্কানীতে তাদের নেতা নেতাকর্মীদের ওপর প্রথমে লাঠি চার্জ, পরে টিয়ার গ্যাস এবং গুলি ছুড়েছে। এসময়  বিএনপি কর্মীরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়েছে। 

পুলিশের তেজগাঁও জোনের ডিসি শহীদুল্লাহ গণমাধ্যম বলেন, “বিএনপির নেতাকর্মীরা বিনা উসকানিতে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করেছে। আত্মরক্ষার্থে আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি।” পরে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নেতাকর্মীদের নিয়ে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ।এ সময় তিনি অভিযোগ করেন চন্দ্রিমা উদ্যানে বিএনপির পূর্বনির্ধারিত শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি বানচাল করতে পুলিশ অতর্কিত হামলা চালিয়েছে।  

মির্জা ফখরুল ইসলাম আরও বলেন, আমরা মনে করি সরকার এভাবে নির্যাতন করে গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করছে। তাদের সরকারের পায়ের তলায় মাটি নেই। তারা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। তাই তারা এভাবে পুলিশ দিয়ে নির্যাতন করছে। জনগণের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারের পতন সম্ভব। আর ঢাকা মহানগর বিএনপি এই আন্দোলনে নেতৃত্ব দেবে। বিএনপি মহাসচিব আজকের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে সরকার ও পুলিশের নির্যাতনের তীব্র নিন্দা জানান। 

আজকের ঘটনায় কতজন আহত হয়েছেন- জানতে চাইলে তিনি বলেন, অসংখ্য নেতাকর্মী আহত হয়েছে। এখনও আমরা হিসাব করিনি। বিএনপি নেতাকর্মীরা পুলিশের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়েছে- এমন অভিযোগের বিষয়ে ফখরুল বলেন, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ। শান্তিপূর্ণভাবে ফুল দিতে এসেছিল নেতাকর্মীরা। সেখানে উসকানির তো প্রশ্নই উঠে না, বরং পুলিশ নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালিয়েছে।  এ সময় ঢাকা মহানগর বিএনপি নেতা আব্দুস সালাম, আমানুল্লাহ আমান, আমিনুল ইসলাম, রফিকুল আলম মজনুসহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন

Comment As:

Comment (0)