No icon

সিক্স-জি নিয়ে আনুষ্ঠানিক গবেষণা শুরু করেছে চীন

ষষ্ঠ প্রজন্মের টেলিকম প্রযুক্তি (সিক্স-জি) নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে গবেষণা শুরুর ঘোষণা দিয়েছে চীন। সিক্স জি’র পথে চীনের এই অভিযাত্রাকে সর্বশেষ তারবিহীন টেলিকমিউনিকেশনের পথে একধাপ এগিয়ে থাকা বলে উল্লেখ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সিনহুয়া নিউজের বরাতে এ খবর জানিয়েছে রয়টার্স।

চীনের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত একটি দৈনিকের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীন সরকারের মন্ত্রণালয় ও সিক্স-জি প্রযুক্তি গবেষণা প্রতিষ্ঠান চলতি সপ্তাহেই এক বৈঠকে বসেছে। ওই বৈঠক থেকে জাতীয় পর্যায়ে সিক্স-জি প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা ও উন্নয়নে একটি গ্রুপ গঠন করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট দ্রুতগতির মোবাইল সেবা নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনের মধ্যে লড়াই চলে আসছে। সারা বিশ্বে এখন ফাইভ-জি প্রযুক্তি সংযোজনের তোড়জোড় চলছে। ফাইভ-জি ফোর-জির তুলনায় বিশগুন দ্রুত কাজ করতে পারে। ফাইভ জি প্রযুক্তির মাধ্যমে চালকবিহীন গাড়ির মতো আবিষ্কারও কাজে লাগানোর চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ করা যায় যে, ফাইভ-জি প্রযুক্তির দ্রুততম প্রসারে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রেখেছে চীনের হুয়াওয়ে টেলিকম কোম্পানি। সারাবিশ্বে তারা ফাইভ-জি কার্যক্রম ছড়িয়ে দিয়েছে। কিন্তু, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে তাদের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

সারা বিশ্ব যেখানে ফাইভ-জি প্রযুক্তির নতুন নতুন উদ্ভাবনের পেছনে ছুটছে। সেখানে চীনের তিনটি টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি ঘোষণা দিয়েছে তারা সারাদেশে ফাইভ-জি নেটওয়ার্কের কাজ সম্পন্ন করেছে। তারপরই চীন আনুষ্ঠানিকভাবে সিক্স জি নিয়ে গবেষণার দিকে এগিয়েছে।

এর আগে, ফেব্রুয়ারিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক টুইটার বার্তায় বলেছিলেন তিনি যত দ্রুত সম্ভব সিক্স-জি প্রযুক্তির বাস্তবায়ন দেখতে চান আমেরিকায়।

চীনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ২০২০ সালের মধ্যেই তারা চীনের নাগরিকদের সিক্স-জি প্রযুক্তির আওতায় নিয়ে আসবে। কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে চলমান প্রযুক্তি দৌড়ে এগিয়ে থাকতেই সিক্স-জি নিয়ে আগাম গবেষণা শুরু করেছে।

Comment As:

Comment (0)